ঢাকা টু রাজশাহী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়ার তালিকা

পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনটি রাজশাহী থেকে ঢাকা এবং ঢাকা থেকে রাজশাহী যাত্রা করে । আপনি কি ঢাকা টু রাজশাহী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়ার তালিকা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে আগ্রহী? তাহলে আজকের পোস্টটি আপনার জন্য। আজকের আর্টিকেল আলোচনা করব ঢাকা টু রাজশাহী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়ার তালিকাসহ অন্যান্য যাবতীয় তথ্য।
ঢাকা টু রাজশাহী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়ার তালিকা
ঢাকা টু রাজশাহী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়ার তালিকা জানতে, এই আর্টিকেলটি ভালোভাবে পড়তে হবে। এখানে ট্রেনটির সম্পূর্ণ সময়সূচী, টিকিট ভাড়া, এবং স্টপেজ সম্পর্কে সকল প্রয়োজনীয় তথ্য উপস্থাপন করা হয়েছে। এটি আপনার ভ্রমণকে সুরক্ষিত এবং সুবিধাজনক করার জন্য আপনার প্রয়োজনীয় তথ্য প্রদান করতে সাহায্য করতে পারে।

পেজ সূচিপত্রঃ ঢাকা টু রাজশাহী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়ার তালিকা

ভূমিকা

পদ্মা এক্সপ্রেস ঢাকা থেকে রাজশাহী যাত্রা করা ট্রেন, যা বাংলাদেশের দ্রুতগামী এবং বিলাসবহুল ট্রেনের মধ্যে একটি। যাতায়াতকারীদের জন্য শান্তিপূর্ণ এবং সুবিধাজনক ভ্রমণের সুযোগ রয়েছে। বাংলাদেশ রেলওয়ের আওতাধীন একটি সেবা। ট্রেনের কমফর্ট এবং উন্নত সুযোগ-সুবিধার জন্য যাত্রীদের কাছে দিন দিন একটি জনপ্রিয় পরিবহন মাধ্যম হয়ে উঠেছে।
তাই আজকের আর্টিকেলে আপনাদের ভ্রমণের সুবিধার জন্য ঢাকা টু রাজশাহী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়ার তালিকা সহ যাবতীয় তথ্য আলোচনা করব।

ঢাকা টু রাজশাহী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেন সম্পর্কে সংক্ষেপে

পদ্মা এক্সপ্রেস (ট্রেন নং- ৭৫৯/৭৬০) বাংলাদেশ রেলওয়ে দ্বারা চালিত একটি আন্তঃনগর ট্রেন, যা বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা থেকে অন্যতম মহানগরী রাজশাহী মাঝে চলাচল করে। ২৩ শে নভেম্বর ২০০৪ সালে ট্রেনটি চালু হয়েছে। এটি একটি বিলাসবহুল আন্তঃনগর ট্রেন, এবং বর্তমানে ভারত থেকে আমদানিকৃত অত্যাধুনিক বিলাসবহুল এলএইচবি কোচ দিয়ে পরিচালিত হচ্ছে। এই ট্রেনের কিছু বৈশিষ্ট্য নিম্নে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে
বিলাসবহুল সুযোগ সুবিধাঃ এটি একটি বিলাসবহুল আন্তঃনগর ট্রেন হিসেবে পরিচিত। এটি যাত্রীদের কাছে বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা সরবরাহ করে, যেমন এসি কোচ, সাধারিত কোচ, রেস্তোরা , ইলেকট্রিক সকেট, ইন্টারনেট সুবিধা স্টেশনে স্টপেজ ইত্যাদি।

মডার্ন এবং সুরক্ষিত কোচঃ ট্রেনটিতে ব্যবহৃত কোচগুলি আধুনিক এবং সুরক্ষিত যাত্রা নিশ্চিত করতে ডিজাইন করা হয়েছে। এসি কোচগুলি যাত্রীদের আরামদায়ক সহায়তা করে এবং দীর্ঘ দুর্গম যাত্রার সময়েও কমফর্ট প্রদান করে।

ভারতীয় এলএইচবি কোচঃ ভারত থেকে আমদানি কৃত এলএইচবি কোচ দিয়ে চলাচল করে, যা মোটামুটি একই একটি সুবিধাজনক এবং যাত্রীদের জন্য পরিচিত হতে পারে।

সময়ের মাধ্যমে গন্তব্য পৌঁছানোঃ ট্রেনটি সময়ের মধ্যে গন্তব্য স্থানে পৌঁছানোর লক্ষ্যে চলে, যা যাত্রীদের জন্য অনেক সুবিধা জনক।

যাত্রীদের জন্য বিভিন্ন সুবিধাঃ পদ্মা এক্সপ্রেসে যাত্রীদের জন্য বিভিন্ন সুবিধা সরবরাহ করা হয়, যেমন ভারতীয় এলএইচবি কোচে বসে ভ্রমণ করা, ইন্টারনেট ব্যবহার করা, রেস্তোরা কারে ভোজ করা, ইত্যাদি।
এই বৈশিষ্ট্যগুলি মিলিয়ে ট্রেনটি বাংলাদেশে ভ্রমণের জন্য একটি অত্যন্ত পছন্দসই ও সুবিধাজনক পরিবহন হিসেবে পরিচিত।

ঢাকা টু রাজশাহী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী

পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনটির সময়সূচি সহজেই বুঝতে এবং যাত্রীদের ভ্রমণের সুবিধার জন্য এই তথ্যটি খুব গুরুত্বপূর্ণ। মঙ্গলবার এই ট্রেনটি ছুটির দিন হিসেবে গণ্য করা হয় এবং এই দিন চলাচল বন্ধ থাকে। সপ্তাহে অন্য ছয়দিনে এই ট্রেন চলাচল করে। ঢাকা টু রাজশাহী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী নিচে দেওয়া হল।
ঢাকা থেকে রাজশাহী
  • ছাড়ার সময়ঃ রাত ১০ঃ৪৫
  • পৌঁছানোর সময়ঃ সকাল ০৪ঃ২৫
  • ছুটির দিনঃ মঙ্গলবার
রাজশাহী থেকে ঢাকা
  • ছাড়ার সময়ঃ বিকাল ১৬ঃ০০
  • পৌঁছানোর সময়ঃ রাত ২১ঃ২৫
  • ছুটির দিনঃ মঙ্গলবার
এই সময়সূচীতে বা যাত্রা শুরু হওয়ার আগ পর্যন্ত সময়ের পরিবর্তন হতে পারে, সুতরাং আপনি সর্বশেষ তথ্যের জন্য বাংলাদেশ রেলওয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট বা আপনার স্থানীয় রেলওয়ে স্টেশনে যোগাযোগ করতে পারেন।

ঢাকা টু রাজশাহী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়ার তালিকা

পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনে শোভন চেয়ার, স্নিগ্ধা, এবং এসি সিট আসন বিভিন্নভাবে বিন্যাসিত রয়েছে। এই আসন বিভাগগুলির জন্য টিকিট মূল্য আসন বিভাগের উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন হতে পারে। ঢাকা টু রাজশাহী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়ার তালিকা নিম্নরূপঃ
  • শোভন চেয়ার ৩৪০ টাকা
  • স্নিগ্ধা ৬৫৪৬ টাকা (ভ্যাটসহ)
  • এসি সিট ৭৮২ টাকা (ভ্যাটসহ)
এখানে আপডেট তথ্য দেয়া রয়েছে। তবুও আপনি ট্রেন স্টেশনে যাওয়ার আগে অথবা আপনার ভ্রান্তি দূর করার জন্য স্থানীয় ট্রেন স্টেশনের টিকেট কাউন্টারে জিজ্ঞাসা করতে পারেন। অনলাইনে বিভিন্ন সময় সূচি ও ভাড়ার তথ্য দেখতে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট বা মোবাইল অ্যাপস ব্যবহার করতে পারেন।

ঢাকা টু রাজশাহী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের বিরত স্টেশন সমূহ

রাজশাহী থেকে ছেড়ে এসে একাধিক স্টেশনে যাত্রাবিরতি করে, যেগুলি ঢাকা থেকে রাজশাহী বা রাজশাহী থেকে ঢাকা যাত্রা করার সময় অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। নিচে ঢাকা টু রাজশাহী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের বিরত স্টেশন সমূহ দেওয়া হল।
  • ঢাকা
  • ঢাকা বিমানবন্দর
  • জয়দেবপুর জংশন
  • টাঙ্গাইল
  • বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব জংশন
  • শহীদ এম মনসুর আলী
  • উল্লাপাড়া
  • বড়াল ব্রীজ
  • চাটমোহর
  • ঈশ্বরদী বাইপাস
  • আব্দুলপুর জংশন
  • সরদহ রোড
  • রাজশাহী
এই সময়সূচি পরিবর্তন হতে পারে, তাই সর্বদা সঠিক ও নতুন তথ্যের জন্য বাংলাদেশ রেলওয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট অথবা স্থানীয় ট্রেন স্টেশনের নোটিশ বোর্ড চেক করুন।

ঢাকা টু রাজশাহী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের ছুটির দিন সমূহ

পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেন সাপ্তাহিক ভিত্তিতে বিভিন্ন দিনে যাত্রা করে এবং একটি দিন ছুটির দিন রয়েছে। রাজশাহী থেকে ঢাকা আসার সময় এবং ঢাকা থেকে রাজশাহী যাওয়ার সময় এই ট্রেনটি মঙ্গলবার ছুটির দিন অথবা অফ ডে ধারণ করে।

আজকের আর্টিকেলে সচরাচর প্রশ্ন

প্রশ্নঃ ট্রেনটি কোথা থেকে কোথায় চলে?
উত্তরঃ ট্রেন ঢাকা থেকে রাজশাহী এবং রাজশাহী থেকে ঢাকা যাত্রা করে।
প্রশ্নঃ এই ট্রেনে কি ধরণের সুবিধা পাওয়া যায়?
উত্তরঃ এক্সপ্রেস ট্রেনে আছে শোভন চেয়ার, স্নিগ্ধা, এসি সিট সহ বিভিন্ন ক্লাসের সুবিধা।
প্রশ্নঃ পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনে ভাড়ার তালিকা কি?
উত্তরঃ ভাড়ার তালিকা টিকেটের বিভাগ এবং উপাধির উপর ভিত্তি করে বিভিন্ন ক্লাসে ভিন্ন হতে পারে। আমাদের আর্টিকেলে ভাড়া উল্লেখ করা আছে।
প্রশ্নঃ পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনে কোন দিন স্থগিত থাকে?
উত্তরঃ  মঙ্গলবার ছাড়া অন্য দিন সকলে যাত্রা করে।
প্রশ্নঃ পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনে কতটি স্টপেজ থাকে?
উত্তরঃ ট্রেনটি  ১১ টি স্টেশনে বিরতি দেয়, এটি ঢাকা থেকে রাজশাহী এবং রাজশাহী থেকে ঢাকা যাত্রা করে।
প্রশ্নঃ পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনে কি-কি খাদ্য সরবরাহ হয়?
উত্তরঃ ট্রেনটিতে খাদ্য সরবরাহ হয়ে থাকে এবং যাত্রীদের জন্য বিভিন্ন খাদ্য আইটেম প্রদান করা হয়।

শেষ কথাঃ ঢাকা টু রাজশাহী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়ার তালিকা

পরিশেষে বলতে চাই, আজকের আর্টিকেলে ঢাকা টু রাজশাহী পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়ার তালিকা সহ অন্যান্য যাবতীয় তথ্য আলোচনা করেছি। আশা করি যে, এই তথ্যগুলি আপনার নিরাপদ ভ্রমণ এবং যাত্রার জন্য সহায়ক হতে সাহায্য করবে।

উপরে দেওয়া তথ্যাদি বাংলাদেশ রেলওয়ে অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে। আপনার পদ্মা এক্সপ্রেস ট্রেন সম্পর্কে যেকোনো মতামত বা প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন। আমাদের সাথে থাকার জন্য ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url