ঢাকা টু রাজশাহী বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়ার তালিকা

আপনি কি ঢাকা টু রাজশাহী বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়ার তালিকা, স্টেশনে যাত্রাবিরতির সময় এবং অন্যান্য তথ্যের বিস্তারিত জানতে আগ্রহী? তাহলে আজকের আর্টিকেলটি আপনার জন্য। আজকের আর্টিকেলে আলোচনা করব ঢাকা টু রাজশাহী বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়ার তালিকা সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য।
ঢাকা টু রাজশাহী বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়ার তালিকা
ঢাকা থেকে রাজশাহী রুটে নিয়মিত যাতায়াত করতে অথবা ভ্রমণ করতে চাইলে, বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেন হতে পারে আপনার জন্য একটি উপকারী মাধ্যম। তাই আপনাদের ভ্রমণে সহায়তা করতে আজকের আর্টিকেলে ঢাকা টু রাজশাহী বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়ার তালিকা নিয়ে আপডেট তথ্য শেয়ার করব।

পেজ সূচিপত্রঃ ঢাকা টু রাজশাহী বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়ার তালিকা

ভূমিকা

বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেন বাংলাদেশের ট্রেন পরিবহনের এক নতুন অধ্যায়ের সূচনা করেছে। এটি বাংলাদেশ রেলওয়ে দ্বারা চালিত একটি আন্তঃনগর ট্রেন, রাজশাহী হতে ঢাকা এবং ঢাকা হতে রাজশাহী রুটে চলাচল করে। এটি (791/792 নম্বর) ট্রেন এবং দেশের মধ্যে একটি আধুনিক এবং বিলাসবহুল ট্রেন হিসেবে পরিচিত।
এই ট্রেনটি অত্যন্ত দ্রুতগতিতে চলাচল করে এবং একটি মাত্র ট্রেন হিসেবে চাঁপাইনবাবগঞ্জ হতে রাজশাহী হতে ঢাকা পর্যন্ত যাত্রা করে। এটি যাত্রীদের জন্য একটি জনপ্রিয় পরিবহন মাধ্যম হিসেবে পরিচিত । এই ট্রেনটির সুবিধা ব্যবহার করতে পারা প্রতিটি যাত্রীর জন্য একটি সুখবর।

ঢাকা টু রাজশাহী বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেন সম্পর্কে সংক্ষেপে

২৫ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার সাথে উত্তরের শহর রাজশাহীর সাথে সংযোগ স্থাপনের জন্য আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সহ একটি নতুন যাত্রীবাহী ট্রেন জনগণকে সেবা দেওয়া শুরু করে। কয়েকদিন পর এই ট্রেনের রুট চাঁপাইনবাবগঞ্জ পর্যন্ত প্রসারিত হয়। এখন চলছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রাজশাহী থেকে ঢাকা।
ট্রেনটিতে বায়ো-টয়লেট, রিক্লাইনার চেয়ার, ওয়াই-ফাই সংযোগ, এলইডি ডিসপ্লের মতো আধুনিক সুযোগ-সুবিধা রয়েছে এবং ঢাকা ও রাজশাহীর মধ্যে চলাচলকারী বিদ্যমান তিনটি এক্সপ্রেস ট্রেনের তুলনায় কমপক্ষে দেড় ঘণ্টার যাত্রা সময় বাঁচায়।

ট্রেনটি চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে সকাল ৬টায় যাত্রা শুরু করে সকাল সাড়ে ১১টায় ঢাকার কমলাপুর রেলস্টেশনে পৌঁছায়। এরপর দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে ঢাকা ছেড়ে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় চাঁপাইনবাবগঞ্জে পৌঁছায়।

ঢাকা টু রাজশাহী বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী

ভ্রমণের জন্য সময়সূচী অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ, এবং বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনটি তার সময়সূচীতে বিশেষভাবে মনোনিবেশ করে। ঢাকা থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পর্যন্ত এই ট্রেনটির যাত্রা ৩৪৩ কিলোমিটার এবং এটি প্রায় ৪ ঘণ্টা ৪০ মিনিট সময় নিয়ে সম্পন্ন হয়। এই সময়ের মধ্যে ট্রেনটি দুটি প্রধান স্টেশনে বিরতি রাখে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন এবং রাজশাহী স্টেশন।
এই উপায়ে মাধ্যমে যাত্রীদের কম সময়ে সঠিকভাবে গন্তব্যে পৌঁছাতে এবং ভ্রমণকে আরও সুবিধাজনক এবং সহজ করা হয়। বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচি নিম্নে দেওয়া হলো।
ঢাকা থেকে রাজশাহী
  • ছুটির দিনঃ শুক্রবার
  • চলাচলের সময়ঃ সকাল ৭ঃ২০ টা
  • আগস্ট থেকে মার্চ মাসে দৈবকালিন সময়ঃ সকাল ৭ঃ৪৫ টা
  • সমাপ্তির স্থানঃ রাজশাহী
রাজশাহী থেকে ঢাকা
  • ছুটির দিনঃ শুক্রবার
  • চলাচলের সময়ঃ বিকাল ৪:৩০ টা
  • আগস্ট থেকে মার্চ মাসে দৈবকালিন সময়ঃ বিকাল ৪ঃ৫০ টা
  • সমাপ্তির স্থানঃ ঢাকা
এই সময়সূচি পরিবর্তন হতে পারে, তাই ট্রেন স্টেশন বা অনলাইনে চেক করতে ভুলবেন না।

ঢাকা টু রাজশাহী বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়ার তালিকা

আপনি যদি বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনে সচরাচর ভ্রমণ করেন, তবে আপনাকে ট্রেনের ভাড়ার তালিকা জানতে হবে যাতে আপনি সিট বুক করতে পারেন। এই ট্রেনে বিভিন্ন শ্রেণির সিট রয়েছে, যেমন শোভন চেয়ার , স্নিগদা এবং এসি সিট। বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়ার তালিকা নিম্নে দেওয়া হলোঃ
  • শোভন চেয়ারঃ ৪২৫ টাকা
  • স্নিগ্ধাঃ ৮১০ টাকা (ভ্যাটসহ)
  • এসি সিটঃ ৯৭৬ টাকা (ভ্যাটসহ)
*এই ভাড়ার তালিকা পরিবর্তন হতে পারে, তাই আপনি ভাড়া নিয়ে নিজেও যাচাই করতে পারেন বা স্থানীয় ট্রেন স্টেশনে জিজ্ঞাসা করতে পারেন।

ঢাকা টু রাজশাহী বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের বিরত স্টেশন সমূহ

বনলতা এক্সপ্রেস একটি বিরতিহীন ট্রেন, যা চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে যাত্রা শুরু করে রাজশাহী হয়ে ঢাকা এবং ঢাকা থেকে রাজশাহী হয়ে চাঁপাইনবাবগজ রুটে নিয়মিত চলচল করে থাকে। এই ট্রেনটি চারটি প্রধান স্টেশনে থামে।

কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনঃ বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেন এখান থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে।
বিমানবন্দর রেলস্টেশন, ঢাকাঃ এই স্টেশনটি ট্রেনটির বিরতিস্থলের মধ্যে একটি বৃহত্তর স্টপ। এটি ঢাকা শহরের উত্তরে অবস্থিত এবং এখান থেকে ভ্রমণ অগ্রগতি হয়।

রাজশাহী রেলওয়ে স্টেশনঃ রাজশাহী এবং ঢাকা মধ্যে এই স্টেশনটি একটি গুরুত্বপূর্ণ স্টপ। ট্রেন এখানে থামে এবং ভ্রমণের জন্য লোকজন বৃদ্ধি পেতে পারে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ স্টেশনঃ চাঁপাইনবাবগঞ্জ স্টেশন হলো ট্রেনের শেষ স্টপ এবং ট্রেনটি এখান থেকে পুনরায় ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে।

ঢাকা টু রাজশাহী বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের ছুটির দিন সমূহ

ঢাকা টু রাজশাহী বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সপ্তাহে ছয়দিন চলাচল করে। ট্রেনের ছুটির দিন সমূহ হলো।

শুক্রবারঃ এই দিন বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচল করে না। এটি একমাত্র সপ্তাহের একটি ছুটির দিন।

এছাড়াও, এই ট্রেন ছয় দিনে ঢাকা থেকে রাজশাহী এবং রাজশাহী থেকে ঢাকা যায়। ট্রেনের সময়সূচি এবং ভাড়ার তালিকা জানতে আপনি স্থানীয় রেলওয়ে স্টেশন বা অনলাইনে অনুসন্ধান করতে পারেন। তাছাড়া আমাদের এই আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ে জানতে পারবেন।

আজকের আর্টিকেলে সচরাচর প্রশ্ন

বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেন নিয়ে মানুষের মাঝে অনেক প্রশ্ন থাকতে পারে।
প্রশ্নঃ বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী কি?
উত্তরঃ বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচীঃ ঢাকা থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ - ছাড়ে: ৬ঃ০০, পৌঁছানোঃ ১১ঃ৩০| চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ঢাকা - ছাড়েঃ ১৩ঃ৩০, পৌঁছানোঃ ১৯ঃ৩০| সাপ্তাহিক বন্ধন দিনঃ শুক্রবার।
প্রশ্নঃ বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনে কোন সুবিধাগুলি রয়েছে?
বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনে রয়েছে বায়ো-টয়লেট, রিক্লাইনার চেয়ার, Wi-Fi সংযোগ, LED ডিসপ্লে, এবং অস্ত্রোপচার করে তার চলনাচলের জন্য কমপক্ষে এক ও এক আধ ঘণ্টা সময় বাঁচিয়ে দেয়।
প্রশ্নঃ ট্রেনে কি খাবারের সুবিধা রয়েছে?
উত্তরঃ বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনে রয়েছে খাদ্য সেবা, তবে এটি ট্রেনের ক্লাস এবং অফিসের ধারাবাহিকতার উপর নির্ভর করে।
প্রশ্নঃ ট্রেনে কি আসন বৃদ্ধি রয়েছে?
উত্তরঃ বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনে আসন বৃদ্ধি রয়েছে এবং এটি মূল্যবান ক্লাসে আরও বেশি সুবিধা সরবরাহ করে।
প্রশ্নঃ ট্রেনের টিকেট কতটি স্টেশনে ক্রয় করা যায়?
উত্তরঃ ট্রেনের টিকেট স্টেশন বা অনলাইনে ক্রয় করা যায়। এছাড়া সাধারণত অনলাইন সেবা প্রদান করে এরকম প্রতিষ্ঠানে থেকে টিকেট ক্রয়ের অপশন রয়েছে।
প্রশ্নঃ বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনে ছুটির দিন কোনগুলি?
উত্তরঃ বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সাপ্তাহিক ছুটি দিন শুক্রবার।
প্রশ্নঃ ট্রেনের ভাড়া কত?
উত্তরঃ ট্রেনের ভাড়া ক্লাস এবং সেবা স্তরের উপর নির্ভর করে, এবং এটি সময়সূচির উপর ভিত্তি করে।
প্রশ্নঃ ট্রেনে কি বিরতি স্থল রয়েছে?
উত্তরঃ বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনে বিরতি স্থল রয়েছে, যা সময়সূচি এবং স্থানের উপর ভিত্তি করে।
প্রশ্নঃ বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সহযোগিতা কোথায় পাওয়া যায়?
উত্তরঃ ট্রেনের সহযোগিতা প্রায়শই স্টেশনে পাওয়া যায়, এবং যাত্রীদের কাছে সেবা দেওয়া হয়।

শেষ কথাঃ ঢাকা টু রাজশাহী বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সময়সূচী ও ভাড়ার তালিকা

পরিশেষে বলতে চাই, আমরা তথ্য বাংলাদেশ রেলওয়ে অফিসিয়াল ওয়েবসাইট থেকে তুলে ধরেছি। আশা করি আপনি উপরোক্ত তথ্যের উপর ভিত্তি করে নিরাপদ যাত্রা করতে পারবেন। সকল ট্রেনের আপডেট তথ্য পেতে আপনি আমাদের সাইটে দেখতে পারবেন। আমরা সব সময় আপনাদের সাথে রয়েছি ।

আমাদের এই আর্টিকেলটি পড়ে আপনি বনলতা এক্সপ্রেস ট্রেনের সম্পর্কে আপনাদের মতামত বা কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করতে পারেন। আমরা সাহায্য করতে প্রস্তুত। আপনাদের সকলের সুস্বাস্থ্য ও নিরাপদ ভ্রমণ কামনা করি। ভাল থাকবেন ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

অর্ডিনারি আইটির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url